Placeholder canvas
কলকাতা সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪ |
K:T:V Clock

Travel Near kolkata | সপ্তাহ শেষের ছুটিতে আসুন বাংলার গ্র্যান্ড ক্যানিয়ন থেকে

Updated : 27 Apr, 2023 5:52 PM
AE: Hasibul Molla
VO: Soumi Ghosh
Edit: Monojit Malakar

অনেকেই আছেন যারা সপ্তাহ শেষে ঘুরতে যেতে ভালোবাসেন। সব সময় চান প্রতিবারই নতুন জায়গার অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করবেন। সপ্তাহ ভর ধরে কাজের চাপ সামলে, শান্তিতে অবসর যাপন করতে কে না চায়। এমন অফবিট স্থান কলকাতার খুব কাছেই রয়েছে। এরকম কিছু অফবিট স্থানের কথা আজকের প্রতিবেদনে তুলে ধরব।

বগুরান, পূর্ব মেদিনীপুর- দিঘা, মন্দারমণি, বকখালি  তো সকলেই যান। ভিড় এড়াতে এবার ঢুঁ মারতে পারেন পূর্ব মেদিনীপুরের বগুরান (Baguran, East Medinipur) জলপাই-এ। কলকাতা (Kolkata) থেকে মাত্র চার ঘণ্টার মধ্যেই সেখানে পৌঁছে যাবেন। কাঁথি স্টেশন থেকে খুব কাছেই অবস্থিত এটি। লাল কাঁকড়া নিরিবিলি শান্ত সমুদ্র বালিয়াড়ি বাগুড়ান জলপাই। পর্যটকের ভিড় কম হওয়ায় এখানকার সমুদ্রতট পরিষ্কার। এখনও এই সমুদ্র সৈকত মানুষের কাছে ততটা পরিচিত নয়। তাই এই সমুদ্র সৈকত (Beach Travel) মেলে ধরেছে অপরূপ প্রাকৃতিক রূপ সৌন্দর্য। সমুদ্রের পাড় জুড়ে অসংখ্য লাল কাঁকড়া, ঝিনুকের দেখা পাবেন। নিরালা শান্ত সমুদ্র সৈকতে একান্ত সময় কাটাতে সমুদ্রের ধারে একা একা হেঁটে বেড়াতে পারবেন। নির্জনে ঢেউয়ের আনাগোনা দেখতে দেখতে কখন সময় পাড় হয়ে যাবে বুঝে উঠতে পারবেন না।

কাঁথি শহর থেকে প্রায় ১৫ কিমি দূরে বাগুড়ান জলপাই। কাঁথি থেকে জুনপুট সড়ক হয়ে পৌঁছানো যায় আধ ঘন্টায়। তবে এখানে থাকার জায়গার একটু সমস্যা আছে। হোটেলের সংখ্যা দুই-একটি। তাই যাওয়ার আগে ঘর বুক করে নেওয়া ভালো। এখানো সারা বছরই বেড়াতে যেতে পারেন।

গনগনি, পশ্চিম মেদিনীপুর- বাংলাতেই রয়েছে অবিকল গ্র্যান্ড ক্যানিয়ন দেখতে একটি জায়গা। পশ্চিম মেদিনীপুরের (West Midnapore) গড়বেতার গনগনিকে (Gangani) বাংলার গ্র্যান্ড ক্যানিয়ন বলা যায়। শীলাবতী নদীর পাশে অবস্থিত এই অঞ্চলটির প্রাকৃতিক সৌন্দর্য আপনাকে মুগ্ধ করবে। গড়বেতা স্টেশনের অদূরে গনগনি। সপ্তাহান্তে ভ্রমণের আদর্শ জায়গা। গনগনি আসলে একটি খাদ এলাকা। প্রাকৃতিক উপায়ে উৎপন্ন এই খাদ গড়বেতার বিখ্যাত পর্যটনক্ষেত্র। এই এলাকা মূলত বেলে পাথরে তৈরি। যুগ যুগ ধরে বয়ে নদীর স্রোতে বয়ে পাথর নুড়ি, নদী জলধারা, আর আবহাওয়ার দাপটে এরা নিজেদের চেহারা পরিবর্তন করেছে। আর সেটাই এখানকার প্রধান আকর্ষণ। শীলাবতী নদী কিন্তু এখানে বিশেষ গভীর নয়। চাইলেই পায়ে হেঁটে নদীর বুক থেকে ঘুরে আসতে পারেন। শিলাবতীর তীরে সূর্যোদয় বা সূর্যাস্তের মুহূর্তে গনগনির রূপ খুবই মোহময়ী।

কলকাতা থেকে গনগনির দূরত্ব ১৮০ কিলোমিটার। গড়বেতা স্টেশন থেকে যে রাস্তা হুমগড়ের দিকে গেছে, সেই পথে গিয়ে ডান দিকে গনগনি। মেদিনীপুর শহর থেকে ৬০ নং জাতীয় সড়ক ধরে শালবনীর উপর দিয়ে শাল জঙ্গল দেখতে দেখতে সোজা চন্দ্রকোনা রোডের উপর দিয়ে গড়বেতায় পৌঁছাবেন। ট্রেনপথে,  মেদিনীপুর স্টেশন থেকে ট্রেন ধরে এক ঘণ্টার মধ্যে গড়বেতা। সেখান থেকে ২.১ কিমি গনগনি। বাসে করে, মেদিনীপুর বাসস্ট্যান্ড থেকে বাসে করে গড়বেতা। সেখান থেকে ২.১ কিমি গনগনি।