Placeholder canvas
কলকাতা মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |
K:T:V Clock

Kaliaganj | রেহাই পেল না পুলিশ, খাটের নীচ থেকে বের করে চলল বেধড়ক মার

Updated : 26 Apr, 2023 3:18 PM
AE: Hasibul Molla
VO: Soumi Ghosh
Edit: Monojit Malakar

কালিয়াগঞ্জ: রেহাই পেল না পুলিশও। প্রাণের ভয়ে খাটের নীচে লুকিয়ে থাকা পুলিশ কর্মীদের (police) টেনে বার করে চলল বেধড়ক মার। ভয়ঙ্কর এই ঘটনার সাক্ষী থাকল কালিয়াগঞ্জ (Kaliaganj)। মঙ্গলবার কালিয়াগঞ্জ সাহেবঘাটায় ছাত্রীকে গণধর্ষণের পর খুনের আভিযোগের প্রতিবাদে মঙ্গলবার কালিয়াগঞ্জ থানা ঘেরাওয়ের কর্মসূচি ছিল তফশীলি কামতাপুরি ও আদিবাসী সম্প্রদায়ের। পরিস্থিতি হাতের বাইরে বেরিয়ে যায়। এমনকী কালিয়াগঞ্জ থানায় আগুন ধরিয়ে দেয় উন্মত্ত জনতা। তাদের হাত থেকে বাঁচতে তানার পিছনের একটি বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছিলেন কয়েকজন পুলিশকর্মী। সেখানে ঢুকে চলল দুষ্কৃতীদের তাণ্ডব। সেই ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় রাতিমতো ভাইরাল। যদিও ওই ভিডিয়োর সত্যতা যাচাই করেনি কলকাতা টিভি ডিজিটাল।

ওই বাড়ির বাসিন্দারা জানান, জনতার তাড়া খেয়ে প্রাণ বাঁচাতে তাঁদের বাড়ি ঢুকে পড়েছিলেন কয়েকজন পুলিশ কর্মী। তাঁরাও আশ্রয় দিয়েছিলেন। খাটের নীচে লুকিয়ে পড়েছিলেন তাঁরা। কিছুক্ষণের মধ্যেই কাতারে কাতারে লোক তাঁদের বাড়িতে ঢুকে পড়ে। সারা ঘরে তাণ্ডব শুরু করে তারা। খাটের নীচ থেকে ওই পুলিশ কর্মীদের টেনে বের করে চলে বেধরক মার (police got beaten)। বারবার প্রাণভিক্ষার আর্জি জানানো হলেও কেউ কানে তোলেনি।
এই ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন ওই বাড়ির বাসিন্দারা। তাণ্ডব চালানোর সময় তাঁদের বাড়িতে ওই দুষ্কৃতীরা লুঠপাট করে বলেও অভিযোগ। টাকা ও ঘরে থাকা বেশ কিছু গয়না নিয়ে দুষ্কৃতীরা পালিয়ে যায় বলে জানিয়েছেন তাঁরা। আহত পুলিশকর্মীদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। কালিয়াগঞ্জের ঘটনার জেরে এলাকায় শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখতে আগামী ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত ৪, ৫, ৬, ১১ নম্বর ওয়ার্ডে ১৪৪ ধারা জারি করেছে কালিয়াগঞ্জ থানার পুলিশ।

উল্লেখ্য, কালিয়াগঞ্জে কিশোরীর অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনায় এখনও উত্তপ্ত এলাকা। গতকাল রাজবংশী ও আদিবাসী মিছিলকে কেন্দ্র করে শুরু হয় বিশৃঙ্খলা। পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট ছোড়ার অভিযোগ ওঠে। বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পাল্টা টিয়ার গ্যাস ছোড়ে পুলিশ। অলিগলি থেকে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট ছুড়তে থাকেন বিক্ষোভকারীরা। পরে বিক্ষোভকারীরা কালিয়াগঞ্জ থানার সামনে মিছিল নিয়ে হাজির হয়ে ব্যারিকেড ভেঙে থানার ভিতরে যাওয়ার চেষ্টা করে। সেই সময় পুলিশ বাধা দেয় বিক্ষোভকারীদের। এরপরই দুপক্ষর মধ্যে ধস্তাধস্তি বেঁধে যায়। পুলিশ প্রথমে লাঠিচার্জ করলে বিক্ষোভকারীরা ছত্রভঙ্গ হয়। কিন্তু পরবর্তীতে বিক্ষোভকারীরা প্রচুর সমর্থকদের থানার সামনে এনে ঢোকার জন্য চেষ্টা করলে কাদানে গ্যাস ছোড়া হয় পুলিশের তরফে। কিন্তু তাতেও বিক্ষোভ কারীদের কোনওভাবেই দমানো যায়নি। বিক্ষোভকারীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট ছুড়তে থাকে বলেও অভিযোগ। পুলিশ কোনও উপায় না দেখে জল কামান প্রয়োগ করে। উত্তেজনা এতটাই বেড়ে যায় যে, কালিয়াগঞ্জ থানায় আগুন লাগিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা। এমনকী জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে পুলিশের সামনে থাকা একটি গাড়িও।