Placeholder canvas
কলকাতা সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪ |
K:T:V Clock

Mamata Banerjee | শুরুতেই সুপারহিট ‘সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী‌’ কর্মসূচি, দুদিনেই ফোন এসেছে ১৩ হাজার

Updated : 13 Jun, 2023 2:42 PM
AE: Hasibul Molla
VO: Soumi Ghosh
Edit: Silpika Chatterjee

কলকাতা: শুরুতেই সুপারহিট ‘সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী’ কর্মসূচি, দুদিনেই ফোন এসেছে ১৩ হাজার। পঞ্চায়েত নির্বাচনের (Panchayat Elections) নির্ঘণ্ট ঘোষণার ঠিক আগের মুহূর্তে রাজ্য সরকারের তরফে নয়া কর্মসূচির ঘোষণা করা হয়। সেই মোতাবেক গত বৃহস্পতিবার নবান্ন থেকে এই কর্মসূচির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। ৮ ই জুন থেকে চালু হয়ে গিয়েছে ‘সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী’ (Sorasori Mukhomantri)। ইতিমধ্যেই সেখানে ব্যাপক সাড়া মিলেছে বলে খবর। যেদিন এই কর্মসূচি নিয়ে আসা হল সেদিন থেকে পরের দু’‌দিনের মধ্যে ১৩ হাজার ফোন এসেছে মুখ্যমন্ত্রীর দরবারে। তার ৬৫ শতাংশ সমাধান করা সম্ভব হয়েছে। বাকি ৩৫ শতাংশ দ্রুত সমাধান হবে নবান্ন সূত্রে খবর। 

‘দিদিকে বলো’ হেল্পলাইন নম্বরেই চালু হয়েছে ‘সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী’ কর্মসূচি। হেল্পলাইন নম্বরটি হল ৯১৩৭০৯১৩৭০। সকাল ১০ টা থেকে সন্ধে ৬ টা অবধি চালু থাকবে পরিষেবা। এর জন্য ইতিমধ্যেই জেলা ও রাজ্যস্তরে তৈরি করা হয়েছে টিম। বিডিও ছাড়াও সেখানে থাকছেন রাজ্য সরকারের বিভিন্ন দফতরের আধিকারিকরা। অভিযোগ এলেই, সংশ্লিষ্ট দফতরের কাছে তা পাঠানো হবে সেই দফতর কতখানি কাজ করছে, তার নজরদারি করবে মুখ্যমন্ত্রীর টিম। অভিযোগের ভিত্তিতে কী ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে, তাও জানানো হবে অভিযোগকারীকে। 

নবান্ন সূত্রে খবর, সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী’ কর্মসূচিতে ফোন করে মূলত মুখ্যমন্ত্রীর প্রকল্পের সুবিধা না পাওয়ার অভিযোগ জমা পড়েছিল। তার মধ্যে অধিকাংশ অধারের সঙ্গে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সংযোগের সমস্যার জন্য আটকে যাচ্ছে। সেই সমস্যা সমাধানের জন্য বিশেষ নির্দেশ দিয়েছিলেন। ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তা অধিকাংশ সমাধান হয়েছে। এই অভূতপূর্ব সাড়া পেয়ে স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী অত্যন্ত খুশি। দুয়ারে সরকার সফলভাবে সাধারণ মানুষের  সমস্যার সমাধানে বিশেষ ভূমিকা নিয়েছিল। তারপর সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী সাফল্যের মুখ দেখতে শুরু করেছে। এই বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, ‘‌আমরা হয়তো সব সমস্যার সমাধান করতে পারব না। কিন্তু জানা তো যাবে। আবার যেগুলি করা যায় তা দ্রুত করা হবে। সরকারের পরিষেবা মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার জন্য এই কর্মসূচি। বাংলার মানুষ এখন সরাসরি ফোন করে আমাকে অভিযোগ জানাতে পারবেন।’’

২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের পর ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচি শুরু হয়েছিল। সেখানেও মিলেছিল বিপুল সাড়া। যা প্রত্যক্ষ করা গিয়েছিল একুশের বিধানসভা নির্বাচনে। এবার সামনে পঞ্চায়েত নির্বাচন। তার প্রাক্কালে নিয়ে আসা হয়েছে ‘’সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী’’ কর্মসূচি। দিদিকে বলো বিষয়টি ছিল তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মসূচি। এবারের বিষয়টি হচ্ছে ‘সরকারি কর্মসূচি’। ইতিমধ্যেই দুয়ারে সরকার কর্মসূচি করে মানুষের দরজার–গোড়ায় সরকারকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এবার মানুষকে ‘সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী’র কাছে পৌঁছে দেওয়া হল।