Placeholder canvas
কলকাতা সোমবার, ১১ ডিসেম্বর ২০২৩ |
K:T:V Clock

Todays Weather | Rain | ভ্যানিশ বৃষ্টি! ফের বাড়ছে তাপমাত্রা?

Updated : 6 May, 2023 3:59 PM
AE: Hasibul Molla
VO: Priti Saha
Edit: Monojit Malakar

কলকাতা: বৈশাখ মাস শেষের পথে এদিকে দেখা নেই কালবৈশাখীর। মাঝের মধ্যে আকাশ কালো হয়ে এলেও দেখা নেই বৃষ্টির (Rain)। কলকাতার (Kolkata) কিছু জায়গায় ছিঁটে ফোঁটা বৃষ্টি হলেও জমকালো বৃষ্টি এখনও পর্যন্ত হয়নি কোথাও। তবে এতে গরমের যে আঁচ তা কমেনি। আবহাওয়া অফিস যে পূর্বাভাস দিয়েছে তাতেও আপাতত কলকাতা-সহ বঙ্গে সেভাবে বৃষ্টির দেখা মেলা ভার।হাওয়া অফিসের খবর অনুযায়ী, শনিবার কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের সব জেলাতেই সামান্য বজ্রবিদ্যুৎ-সহ ছিটেফোঁটা থেকে হালকা বৃষ্টির কথাই বলা হয়েছে। এদিন কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৭ ডিগ্রির আশপাশে থাকবে। কলকাতার ক্ষেত্রে এদিনের সর্বোচ্চমাত্রা স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস কম এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা স্বাভাবিকের থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস কম। তবে বাতাসে আপেক্ষিক আদ্রতা ৯১ শতাংশের বেশি থাকবে। যার ফলে প্যাঁচপ্যাঁচানি গরমের হাত থেকে উদ্ধার পাওয়ার সম্ভাবনা কম।

এদিকে দক্ষিণবঙ্গে (South Bengal) অধিকাংশ জেলার তাপমাত্রাই ৩৪ থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে ঘোরাফেরা করবে। সেই সঙ্গে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। শনিবার দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগরে তৈরি হচ্ছে ঘূর্ণাবর্ত৷ পরে এটি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় মোচাতে পরিণত হতে পারে৷যদি মোচার প্রভাব দক্ষিণবঙ্গে সেভাবে না পড়ে তাহলে, বাঁকুড়ার তাপমাত্রা পৌঁছে যেতে পারে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে। 

এদিকে উত্তরবঙ্গে (North Bengal), তাপমাত্রার (Temparature) দাপট সামান্য কমবে। ডুয়ার্স এলাকার জেলাগুলি এবং দার্জিলিং এর আসে পাশের অঞ্চল গুলি সামান্য স্বস্তি পাবে। উত্তরবঙ্গের সমস্ত জেলাতেই বৃষ্টির পূর্বাভাস ও বজ্র বিদ্যুৎ-এর আগাম বার্তা দিয়ে রেখেছে আবহাওয়া দফতর। কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার, জলপাইগুড়ি-র তাপমাত্রা ৩০ থেকে ৩৫ ডিগ্রির মধ্যে ঘোরাফেরা করবে এবং বৃষ্টির সম্ভাবনাও রয়েছে। সেইসঙ্গে দার্জিলিং এবং তার পার্শ্ববর্তী পাহাড়ি এলাকাগুলিতে তাপমাত্রা ১৮ থেকে ২২ ডিগ্রির মধ্যে ঘোরাফেরা করার কথা। শিলিগুড়িতে তাপমাত্রা থাকবে ৩২ ডিগ্রির মধ্যে।

আবহাওয়াবিদদের মতে গ্রীস্মকালকে (Summer) যেভাবে বৃষ্টির অকাল এবং কালবৈশাখী ভ্যানিশ হয়ে যাচ্ছে তাতে পৃথিবীর ভবিষ্যৎ বিপর্যয়ের দিকে যাচ্ছে। তাপামাত্রার পারদ অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যাওয়া এরই অঙ্গ। আবহবিদদের মতে এর জন্য এপ্রিলে পারদের মাত্রা ৪০-৪২ ডিগ্রি সেলসিয়াস পার করে গিয়েছিল।