Placeholder canvas
কলকাতা সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪ |
K:T:V Clock

WFI Chief Brij Bhushan Singh | ২০২৪-এর লোকসভা ভোটেও দাঁড়াবেন, ঘোষণা ব্রিজভূষণের

Updated : 12 Jun, 2023 12:34 AM
AE: Abhijit Roy
VO: Soumi Ghosh
Edit: Silpika Chatterjee

গোন্ডা (উত্তরপ্রদেশ): যৌন হেনস্তার অভিযোগে দেশ যখন তোলপাড়, তখন কুস্তি ফেডারেশনের সভাপতি তথা বিজেপি সাংসদ ব্রিজভূষণ শরণ সিং ফের ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে ভোটে দাঁড়াবেন বলে ঘোষণা করলেন। উত্তরপ্রদেশের তাঁর পুরনো কেন্দ্র কাইজারগঞ্জ থেকেই আবার লোকসভা ভোটে দাঁড়ানোর কথা রবিবার এক সভামঞ্চ থেকে জানান ব্রিজ। নরেন্দ্র মোদির সরকারের ৯ বছর পূর্তি উপলক্ষে গোন্ডায় এক কর্মসূচিতে আসেন বিতর্কিত ফেডারেশন সভাপতি। লোকসভা ভোটের আগে বিজেপি-র মহাসম্পর্ক অভিযানে ভাষণ দেন।

একটি কবিতা দিয়ে ভাষণ শুরু করেন দেশের ৭ শীর্ষ কুস্তিগিরকে যৌন হেনস্তা ও অশালীন কাজের অভিযুক্ত ব্রিজ। বলেন, ইয়ে মিলা মুঝকো মহব্বত কা সিলা, বেওয়াফা কহেকে মেরা নাম লিয়া জাতা হ্যায়। ইসকো রুসওয়াই কহেঁ কি শোহরত আপনি, দাবে হোঁঠো সে মেরা নাম লিয়া জাতা হ্যায়। অর্থাৎ, ভালোবাসার এই পুরস্কার পেলাম। ওরা আমার অবিশ্বাসী বলে ডাকছে। একে কুখ্যাতি বা খ্যাতি বলতে পারো, ওরা ঠোঁট বেঁকিয়ে আমার নাম নিচ্ছে।

উল্লেখ্য, এর আগে ৫ জুনের একটি কর্মসূচি বাতিল করেন ব্রিজভূষণ। কিন্তু এদিন তিনি তাঁর শক্তিপ্রদর্শনের জন্য বেরতে রাজি হন। গোন্ডায় তিনি কোনও কুস্তিগিরের নাম না করে বলেন, রাজনৈতিক বিরোধীরা এবং তাঁদের দলগুলি আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করছে। ভাষণে তিনি কেন্দ্রের পূর্বতন কংগ্রেস সরকারকে তুলোধনা করেন। ভারতভাগ, পাকিস্তান ও চীনের দ্বারা দেশের মাটি বেদখল হওয়ার জন্য কংগ্রেসকে দায়ী করেন। সভায় ভাষণ দেওয়ার আগে ২৫ কিমি দীর্ঘ একটি রোড শো করে নিজের ক্ষমতা প্রদর্শন করেন এই বাহুবলি নেতা।

প্রসঙ্গত,  কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রী (Sports Minister) অনুরাগ ঠাকুরের (Anurag Thakur) সঙ্গে কুস্তিগিরদের বৈঠক হয়েছে বুধবার। অনুরাগ জানিয়েছেন যৌন হেনস্তার অভিযোগে পুলিশ ১৫ জুনের মধ্যে চার্জশিট দেবে। তিনি কুস্তিগিরদের এটাও জানিয়েছেন ভারতীয় কুস্তি সংস্থার নির্বাচন হবে ৩০ জুনের মধ্যে। এই সব প্রতিশ্রুতির জন্য ১৫ জুন পর্যন্ত কুস্তিগিররা তাঁদের আন্দোলন স্থগিত রেখেছেন। তদন্ত প্রক্রিয়ায় দিল্লি পুলিশ কুস্তিগির সঙ্গীতা ফোগটকে ব্রিজভূষণ শরণ সিংয়ের বাড়িতে নিয়ে যায়। অভিযোগের সারবত্তা খুঁজছে তারা। এদিকে কুস্তিগির বিনেশ ফোগট টুইটারে সংবাদমাধ্যমের একাংশকে এক হাত নেন। কারণ রটনা হয়েছিল যে, কুস্তিগিররা ভারতীয় কুস্তি সংস্থার অফিসে পৌঁছেছে একটি সমাধান সূত্র বের করার জন্য।
কুস্তিগির বজরং পুনিয়া (Bajrang Punia) জানিয়েছেন, ১৫ জুনের মধ্যে সমস্যার সমাধান না হলে তাঁরা বড় ধরনের প্রতিবাদ আন্দোলনে নামবেন। পুলিশের ১৫ জুনের মধ্যে ব্রিজভূষণের বিরুদ্ধে চার্জশিট জমা দেওয়ার কথা। কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুরের দেওয়া তদন্তের আশ্বাস পূরণ না হলে আমরা আরও বড় আকারে প্রতিবাদে নামব। আমরা তার গ্রেফতারে দাবি থেকে পিছপা হইনি।

এদিকে, সমঝোতার জন্য চাপ দিয়ে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এক সাক্ষাতে দাবি করলেন সাক্ষী মালিক। কুস্তি ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়ার সভাপতি এবং বিজেপি সাংসদ ব্রিজভূষণ শরণ সিংয়ের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগকারী সাত মহিলা কুস্তিগিরের মধ্যে একজন ছিলেন। চাপের মুখে তাঁর বক্তব্য পরিবর্তন করেছিলেন, অলিম্পিয়ান সাক্ষী মালিক (Sakshee Malikkh) সাক্ষাৎকারে বলেছেন। তিনি বলেন, আমাদের উপর সমঝোতার জন্য চাপ রয়েছে। ব্রিজভূষণের লোকেরা ফোন করে হুমকি দিচ্ছে অভিযোগ তুলে নেওয়ার জন্য।

মালিক আরও বলেন, তাঁরা প্রথম দিন থেকেই অভিযুক্তকে গ্রেফতার ও হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের দাবি জানিয়ে আসছেন। কারণ অভিযোগকারী ও সাক্ষীদের ভয় দেখানোর জন্য ক্ষমতার প্রভাব খাটাছেন ব্রিজভূষণ। তাঁকে গ্রেফতার না করলে নিরপেক্ষ তদন্ত করা যাবে না। সাক্ষী মালিক বলেন, আমরা একমাত্র তখনই এশিয়ান গেমসে অংশ নেব যখন এই সব ইস্যুর নিষ্পত্তি হবে।